Welcome to My Website

লেখক পরিচিতি:

শ্রী গৌতম বিশ্বাস একজন ভ্রমণ প্রিয় মানুষ। বর্তমানে আয়কর বিভাগের একজন আধিকারিক। সাম্প্রতিক সময়ে মিডিয়ার মাধ্যমে প্রবল হইচই আর আত্মপ্রচারের প্রতিযোগিতার মাঝেও দুয়েকজন লেখক আছেন যাঁরা নিঃশব্দে তাঁদের তন্নিষ্ঠ লেখালেখির কাজ করে যান। পরিব্রাজক লেখক গৌতম বিশ্বাস তাঁদেরই একজন।ঐতিহাসিক গবেষণা, পুরাতত্ত্ব, মন্দির, ধর্মীয়স্থান সাধনলব্ধ পীঠস্থানই তাঁর লেখার মূল বিষয়বস্তু। বিষয়কে উপস্থাপনার এক অনবদ্য শৈলীর জাদু তাঁর লেখার মধ্যে পাওয়া যায়, যা পাঠককে মুগ্ধ করে।একটানা না পড়ে থামা যায় না।এটিও তাঁর জনপ্রিয়তার আরও একটি কারণ। তিনি তাঁর আাধ্যাত্মিক ভ্রমণস্থানগুলি প্রকৃতি ও মানুষকে একেবারে আপন করে পাঠকের সামনে উপস্থাপিত করেন।পাঠকও তাঁর সঙ্গে স্বচ্ছন্দে বিচরণ করতে থাকেন। কাজের অবসরে তাঁর পিপাসু-মন খুঁজে ফেরে ভারতবর্ষের সুপ্রাচীন আধ্যাত্ম দর্শন, দেশের নানা প্রান্তরে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা মঠ-মন্দির, দেব-দেউল আর সেগুলিকে ঘিরে গড়ে ওঠা নানা কিংবদন্তী, পৌরাণিক ব্যাখ্যা ও বাস্তব ভিত্তি। তাঁর এই আনুসন্ধিত্সু মন নিয়ে লিখে চলেন এরকমই একের পর এক প্রবন্ধ ও পৌরাণিক কাহিনী।

লেখকের কথায়, ‘আমি লেখক নই।প্রাচীন মঠ, মন্দিরগুলো যেন আমায় ডাকে।সেখানে গিয়ে নিজের চোখে যা দেখি, যা উপলব্ধি করি তাই-ই লিখে ফেলি। গল্প বানাতে পারি না।’ এখানেই শ্রী বিশ্বাসের লেখার অনন্যতা।তাই আজ অসংখ্য ভ্রমণ-সাহিত্যের মধ্যে তাঁর লেখা প্রতিটি গ্রন্থই যেন স্বতন্ত্রতার দাবী রাখে।

      আর যা ভালোবাসেন তা হল পরিব্রাজন এবং ক্রীড়াবিদ তৈরী করে সমাজে প্রতিষ্ঠা করা। তিনি নিজেও একজন প্রাক্তন জাতীয় ক্রীড়াবিদ। আজন্ম গড়িয়ার অধিবাসী। পিতা স্বর্গত যাদবলাল বিশ্বাস। মা সুধারাণী।   

 

Author’s Profile:

Shri Goutam Biswas is a man with an impulsion for voyage. There are still some people who keep doing their work of writing even in the midst of self-popularity through media. Traveller Goutam Biswas is one of those persons. The main theme of his writings is related to historical experiments, ancient buildings, temples, religious pithas etc. The mesmerizing quality of making the readers understand is found in his writings. His writings are taken as a kind of un-put-downable piece that is another reason of his popularity. He represents the nature of the religious places and their natives to the readers as if he was also a native of that place. It is like the reader also travels with the writer. His thirst for knowledge makes him travel throughout Indian and her neighbours. And this thirst gives him the impulsion for writing various facts and writings unknown to us.

The magnanimous writer says, “I am not a writer. The old temples, Mathas attract me and ask me to come. The simple observation obtained from the visit is the base of my writings. I cannot fabricate.” Here is the specialty of Mr. Biswas’s writing. Perhaps that is the reason that his writings stand liberal among numerous travelogues.

Among his visions there is a noble thought of making travellers and athletes and make them establish in society. He himself was an athlete in his past life. He achieved a new record in West Bengal State Athlete Meet in three categories in the year 1976. At present he is an officer in the department of Income Tax. He is the native of Garia. His father is Lt. Jadav lal Biswas and mother Sudha Rani. His family environment worked as religious surroundings that give his writings a special tone, as if the Midas touch.

 

 

 

তারাপীঠের সিদ্ধসাধক তারাখ্যাপা

সাধক তারাখ্যাপা ছিলেন অলৌকিক ক্ষমতাসম্পন্ন সাধক এবং অগ্নিযুগের বিপ্লবী। তিনি ছিলেন তারাপীঠের সিদ্ধসাধক বামাখ্যাপার প্রিয়তম শিষ্য। সাধক বামাখ্যাপার মতোই তারাখ্যাপাকে নিয়েও রয়েছে নানা অলৌকিক কাহিনী। কথিত আাছে, মা তারা স্বয়ং তাঁকে দর্শন দিয়েছিলেন। বামদেব তাঁকে মৃতসঞ্জীবনী বিদ্যা শিক্ষা দিয়েছিলেন।মৃত্যুপথযাত্রীকেও আলৌকিক ক্ষমতা বলে সুস্থ করে তুলতেন। আবার বিপ্লবী মতবাদ প্রচারের জন্য তারাখ্যাপার উপর নেমে এসেছিল ব্রিটিশের রাজরোষ। নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বসু, ঋষি অরবিন্দ, বারীণ ঘোষ প্রভৃতি স্বাধীনতা সংগ্রামীদের সঙ্গে তাঁর নিত্য যোগাযোগ ছিল। লেখক গৌতম বিশ্বাস সাপ্তাহিক বর্তমানের ২০১৫ ৪ঠা এপ্রিলের সংখ্যায় প্রথম এই মানব দরদী সিদ্ধযোগীর উপর প্রথম আলোকপাত করেন।

 

 Tarapither Siddhasadhak Tarakhapa

Tarakhapa is a saint with supernatural power on one hand and a freedom fighter on the other hand. He is the best disciple of great Sadhak Bamakhapa of Tarapith. A lot of extraordinary stories of Tarakhapa are there just as of Bamakhapa. It is said that Maa Tara Herself made appearance before him. Bamdev gave him the knowledge of Mritasanjibani Vidya. It is also said that Tarakhapa could take a person on the verge of death back to life with his supernatural powers. He was on regular conversion with Netaji Subhas Chandra Bose, Rishi Arabinda, Barin Ghosh and many more freedom fighters on various issues of Indian freedom struggle. The British cruelty came upon him for his endeavour on the spread of revolutionary  opinion. Articles on this subject came out first on weekly Bartaman on 4th April, 2015 by Shri Goutam Biswas.